• বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৫:৪৬ পূর্বাহ্ন |
  • Bangla Version
নিউজ হেডলাইন :
করোনা শনাক্তের হার ১৫ শতাংশের বেশি, মৃত্যু ১ আওয়ামী লীগ নেতার ভয়ে টয়লেটে প্রধান শিক্ষক, উদ্ধার করলো পুলিশ পশ্চিম রেলের জিএমকে লাঞ্ছিত করলেন নারী যাত্রী নোয়াখালীতে ২ মাদক কারবারি গ্রেফতার গাজীপুরে প্রতারক চক্রের তিনজন গ্রেফতার চাঁদপুরে জালিয়াতি চক্রের দুই সদস্য গ্রেফতার কুষ্টিয়ায় গাঁজা গাছসহ আটক ১ দিনাজপুরে ইসলামী আন্দোলনের জেলা সম্মেলন কুষ্টিয়ায় আশ্রয়ণ প্রকল্পের নির্মাণাধীন ৩ ঘর ভাঙল দুর্বৃত্তরা যশোরে অভয়নগরে রাকিবুল হত‍্যা মামলার একজনকে অস্ত্রসহ আটক করেছেডিবি পুলিশ  রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী একনয়– জাকির সিকদার যশোরে বিষাক্ত স্পিরিট পানে  ৩ জনের  মৃত‍্যুর ঘটনায় যশোর র‌্যাব-৬, ০৫ জনকে গ্রেফতার জেল ও জরিমানাসহ সাজা প্রদান  যশোর অভয়নগরে অনাদী হত‍্যা মামলায় ১০ বছরের সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছে আদালত প্রধানমন্ত্রীর উপপ্রেস সচিব হলেন মিনা বেলজিয়ামের রানী খুলনার দাকোপে প্রকল্প পরিদর্শনে যাবেন কাল ডেঙ্গু : ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি ৭ জন

বাজার দর ৪৬ টাকা; সরকার নির্ধারিত মূল্য ৪২ টাকা
অভয়নগরে চাল সংগ্রহে গলদঘর্ম খাদ্য বিভাগ; লক্ষ্যমাত্রা পূরণে শংশয়

যশোর প্রতিনিধি যশোরের অভয়নগর উপজেলায় চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা পূরণে রীতিমত গলদঘর্ম হচ্ছেন খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তারা। সরকার নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কোন মিল মালিক চাল সরবরাহে চুক্তিবদ্ধ না হওয়ায় পূণরায় সময় বৃদ্ধি করা হয়েছে। কোন মিল মালিক চাল সরবরাহের চুক্তিপত্রে আবব্ধ হয়নি। ফলে চলতি মৌসুমে নওয়াপাড়া খাদ্য গুদামে চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্র পূরণ নিয়ে শংশয় দেখা দিয়েছে।উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় সূত্রে জানাগেছে, সরকার নির্ধারিত চালের মূল্য থেকে বাজার মূল্য বেশি থাকায় সারাদেশে চাল সংগ্রহ বাঁধাগ্রস্থ হচ্ছে। যে কারনে চালকল মালিকদের সাথে চুক্তির মেয়াদ ইতিমধ্যেই একদফা বাড়িয়েছে সরকার। পূর্বে চাল সংগ্রহের চুক্তির সময়সীমা ১৭-১১-২০২২ ইং তারিখ হতে ২৬-১১-২০২২ ইং তারিখ পর্যন্ত নির্ধারণ করলেও পরবর্তীতে তা ০৮-১২-২০২২ পর্যন্ত বার্ধিত করা হয়। কিন্তু বর্ধিত সময় শেষ। উপজেলার কোন চালকল এখনও চুক্তিবদ্ধ হয়নি। সূত্র জানায়, সম্প্রতি গত ২৭ নভেম্বর যশোর জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক (ভারপ্রাপ্ত) নিত্যানন্দ কুন্ডু অভয়নগর উপজেলা খাদ্য গুদামে চাল সংগ্রহ তরান্বিত করতে মিল মালিকদের সাথে জরুরী বৈঠকে বসেন। সেখানে উপজেলার ২১ টি চালকলের মালিকগণ বৈঠকে উপস্থিত হন। এবং সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী তাদেরকে দ্রুত চাল সরবরাহের জন্য চুক্তিব্ধ হওয়ার তাগিদ দেয়া হয়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক চালকল মালিক জানিয়েছেন, বাজার মূল্যের চেয়ে সরকার নির্ধারিত চালের মূল্য কেজি প্রতি ৪ টাকা থেকে ৫ টাকা কম। এই দরে চাল দিলে তারা চরম লোকসানের মুখে পড়বেন। যে কারনে তার গুদামে চাল সরবরাহে অনিহা প্রকাশ করেছেন।নওয়াপাড়া খাদ্য গুদাম সূত্রে জানাগেছে, চলতি মৌসুমে এ উপজেলায় ২ হাজার ৯শ’ ২০ মেট্টিকটন চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্র নির্ধারন করা হয়েছে। আগামী ২০২৩ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত সংগ্রহ চলমান থাকবে। তবে এখনও এক কেজি চালও সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি। এবং কোন চালকল মালিক চুক্তিবদ্ধ হয়নি।এ ব্যাপারে নওয়াপাড়া খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসিএলএসডি) অসিম কুমারও বাজার মূল্যের চেয়ে সরকার নির্ধারিত মূল্যের পার্থক্যের কথা স্বীকার করে বলেন, তবুও আমরা মিল মালিকদের সাথে আলোচনাপূর্বক চাল সংগ্রহের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আশাকরি দ্রুতই মিলাররা চুক্তিবদ্ধ হবেন। এবং নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সরকারি নীতিমালা মেনেই চাল সংগ্রহ সম্পন্ন হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.