• সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ০৭:৫৮ অপরাহ্ন |
  • Bangla Version
নিউজ হেডলাইন :
করোনা শনাক্তের হার ১৫ শতাংশের বেশি, মৃত্যু ১ ছেলেকে নিয়ে খবর, মেসি বললেন—এটা মিথ্যা এমবাপ্পেকে পিএসজির কট্টর সমর্থকদের ‘হুমকি’ আইপিএল মানে বলিউড নয়, কেকেআর খেলোয়াড়দের গম্ভীর অষ্ট্রেলিয়ায় পিএইচডি করছেন রুপা, বাবা পার্থ বড়ুয়ার সঙ্গে মঞ্চে গাইলেন এ এমন পরিচয়… ক্ষোভ–অভিমান থেকে বিদায় নিলেন ইলিয়াস কাঞ্চন, বললেন অনেক কথা নতুন বিজ্ঞাপনচিত্রে মুশফিক ফারহান এবারের ‘ইন্ডিয়ান আইডল’ জিতলেন কে প্রিন্সেস টিনা খানের মেয়ের ‘ভুলে ভরা’ জীবন ‘অবিকল ঐশ্বরিয়া’ শিল্পী সমিতির বনভোজনে হাতাহাতির ঘটনায় মামলা বৈশাখীর ‘সকালের গানে’ গাইবেন সুস্মিতা সাহা বিচ্ছেদ নিয়ে প্রশ্ন, জবাবে যা বললেন জয়া আহসান চলন্ত ট্রেন থেকে ঝাঁপ দিয়েছিলেন অঙ্কিতা! নেপথ্যে কোন ঘটনা? আগামী উপজেলা নির্বাচনে অংশ নেবে না বিএনপি : রিজভী নোয়াখালীতে তিন দিনব্যাপী ঈদ আনন্দ মেলা

বিক্ষোভ দমনে প্রথম মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করল ইরান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ইরান সাম্প্রতিক সরকারবিরোধী বিক্ষোভের জন্য এই প্রথম দোষী সাব্যস্ত এক বিক্ষোভকারীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার ঘোষণা দিয়েছে।রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, একটি বিপ্লবী আদালতে ‘সৃষ্টিকর্তার বিরুদ্ধে শত্রুতার’ দোষে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর বৃহস্পতিবার সকালে মোহসেন শেখারিকে ফাঁসি দেওয়া হয়। তাকে একজন ‘দাঙ্গাকারী’ হিসেবে অভিযুক্ত করা হয়েছে। তিনি ২৫ সেপ্টেম্বর তেহরানের একটি প্রধান সড়ক অবরোধ করেছিলেন এবং আধাসামরিক বাসিজ বাহিনীর এক সদস্যকে ছুরি দিয়ে আহত করেছিলেন।একজন বিক্ষোভকারী বলেছেন, ‘যথাযথ কোনো প্রক্রিয়া ছাড়াই লোকদেখানো বিচারের পর’ তাকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়।বিচার বিভাগের মিজান বার্তা সংস্থা জানিয়েছে, মোহসেন রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেছিলেন, কিন্তু ২০ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্ট আগের রায়ই বহাল রাখেন।এদিকে নরওয়েভিত্তিক ইরান মানবাধিকারের পরিচালক মাহমুদ আমিরি-মোগাদ্দাম উদ্বেগ প্রকাশ করে টুইটে লিখেছেন, ইরানি কর্তৃপক্ষ দ্রুত আন্তর্জাতিকভাবে বাস্তবসম্মত পরিণতির সম্মুখীন না হলে দেশটিতে প্রতিদিনই বিক্ষোভকারীদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর শুরু হবে।

ইরানের বিচার বিভাগ সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি থেকে শুরু হওয়া বিক্ষোভের ঘটনায় এ পর্যন্ত ১১ জনের বিরুদ্ধে মৃত্যুদণ্ডের রায় ঘোষণা করেছে। তবে আসামিদের পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি।দেশটির কঠোর পোশাক নীতি লঙ্ঘনের দায়ে গ্রেপ্তার মাহসা আমিনির (২২) পুলিশি হেফাজতে মৃত্যুর পর থেকে ইরানজুড়ে বিক্ষোভ চলছে। চলমান এই বিক্ষোভ দেশটির ৩১টি প্রদেশের ১৬০টি শহরে ছড়িয়ে পড়েছে, যা ১৯৭৯ সালের বিপ্লবের পর থেকে ইসলামী প্রজাতন্ত্রের জন্য সবচেয়ে বড় আন্দোলন হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ ছাড়াও হিজাববিরোধী এই আন্দোলন সরকারবিরোধী আন্দোলনে রূপ নিয়েছে।ইরানের নেতারা এই বিক্ষোভকে তাদের দেশের বিদেশি শত্রুদের প্ররোচিত ‘দাঙ্গা’ হিসেবে চিত্রিত করেছেন এবং নিরাপত্তা বাহিনীকে এই বিক্ষোভ কঠোরভাবে মোকাবেলা করার নির্দেশ দিয়েছেন।হিউম্যান রাইটস অ্যাক্টিভিস্টসের বার্তা সংস্থা অনুসারে, এ পর্যন্ত অন্তত ৪৭৫ জন বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছে এবং ১৮ হাজার ২৪০ জনকে আটক করা হয়েছে। নিহতদের মধ্যে ৬১ জন নিরাপত্তা কর্মী রয়েছেন বলেও খবর পাওয়া গেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.