• বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:৩১ পূর্বাহ্ন |
  • Bangla Version
নিউজ হেডলাইন :
করোনা শনাক্তের হার ১৫ শতাংশের বেশি, মৃত্যু ১ তীব্র গরমের পরে রাজধানীতে স্বস্তির বৃষ্টি ভারত সিরিজের দল দিল বিসিবি রিয়ালের রেকর্ডে ভয় পান না গার্দিওলা  উপজেলা নির্বাচন বর্জনের সিদ্ধান্ত বিএনপি ও জামায়াতের স্মরণসভায় বক্তারা ডা. জাফরুল্লাহ ছিলেন অন্যায়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার কণ্ঠ নেতানিয়াহু এ যুগের হিটলার: কাদের টেস্ট পরীক্ষার নামে বাড়তি ফি নেওয়া যাবে না: শিক্ষামন্ত্রী ঢাকায় গ্রিসের দূতাবাস স্থাপন ও জনশক্তি রপ্তানি বৃদ্ধির সম্ভাবনা বাজার নিয়ন্ত্রণে আরও সোয়া লাখ টন চাল আমদানির অনুমতি বিজিপির আরও ১৮ সদস্য পালিয়ে বাংলাদেশে ইরান উত্তেজনা বাড়াতে চায় না, পুতিনকে টেলিফোনে রাইসি আমাদের অঞ্চলে আর সংঘাতের প্রয়োজন নেই: সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফিলিস্তিনকে সমর্থন করায় সেরা ছাত্রীর বক্তৃতা বাতিল করল যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ববিদ্যালয় শান্তিতে নোবেল পুরস্কারের জন্য মিয়ানমারের মানবাধিকারকর্মী জারনির নাম প্রস্তাব ইসরায়েলকে সহায়তা করায় বিক্ষুব্ধ জর্ডানের নাগরিকরা

যশোর অভয়নগরে অনাদী হত‍্যা মামলায় ১০ বছরের সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছে আদালত

যশোর প্রতিনিধি: যশোরের অভয়নগর উপজেলার হরিশপুর গ্রামের অনাদী সরকার হত্যা মামলায় ব্রিটেন বিশ্বাস নামে এক ব্যক্তিকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেছেন আদালত। একই সাথে তাকে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরো ৬ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। গতকাল রবিাবর যশোরের স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ সামছুল হক এই রায় প্রদান করেন। সাজাপ্রাপ্ত ব্রিটেন বিশ্বাস একই উপজেলার ডহর মশিয়াহাটি গ্রামের মান্দার বিশ্বাসের ছেলে। বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন স্পেশাল পিপি অ্যাড. সাজ্জাদ মোস্তফা রাজা।মামলার বিবরণে জানা যায়, হরিশপুর গ্রামের বাসিন্দা অনাদী সরকারের বড় ছেলে মানিক সরকারের সাথে ডহর মশিয়াহাটি গ্রামের সুপদ বিশ্বাসের মেয়ে মেঘনা বিশ্বাসের বিয়ে হয়। দাম্পত্য জীবন চলাকালে সাংসারিক বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব শুরু হয়। ২০০৭ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর আসামি ব্রিটেন বিশ্বাস, মেঘনা বিশ্বাসের ভাই শংকর বিশ্বাস, বাবা সুপদ বিশ্বাস এবং তাদের নিকট আত্মীয় পংকজ বিশ্বাস ও সুধীর বিশ্বাস বিষয়টি মীমাংসার জন্য হরিশপুরে অনাদী সরকারের বাড়িতে আসেন। দুই পক্ষের মধ্যে আলাপের এক পর্যায়ে ব্রিটেন বিশ্বাস ক্ষিপ্ত হয়ে কাঠ দিয়ে অনাদী সরকারের মাথায় আঘাত করলে তিনি মাটিতে পড়ে যান। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৯ সেপ্টেম্বর মারা যান অনাদী সরকার। এ ঘটনায় ব্রিটেন বিশ্বাস, শংকর বিশ্বাস, সুপদ বিশ্বাস, পংকজ বিশ্বাস ও সুধীর বিশ্বাসকে আসামি করে অভয়নগর থানায় মামলা করেন নিহত অনাদী সরকারের আরেক ছেলে অরুন সরকার। ২০০৮ সালের ৭ এপ্রিল মামলাটি তদন্ত করে এজাহারভুক্ত ৪ জনকে অভিযুক্ত করে এবং আসামি পংকজ বিশ্বাসের অব্যহতি চেয়ে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের এসআই রহিম মোল্লা। এই মামলায় আসামি ব্রিটেন বিশ্বাসের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে উল্লিখিত সাজা প্রদান এবং অপর ৩ আসামির বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদেরকে খালাস দিয়েছেন আদালত। রায় ঘোষণার সময় আসামি ব্রিটেন বিশ্বাস অনুপস্থিত থাকায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আদেশ দেয়া হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.