• শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০১:৩২ পূর্বাহ্ন |
  • Bangla Version
নিউজ হেডলাইন :
করোনা শনাক্তের হার ১৫ শতাংশের বেশি, মৃত্যু ১ কালিয়াকৈরে কলেজছাত্র হত্যাকারীদের গ্রেফতার দাবিতে মানববন্ধন টাঙ্গাইলে নদীর পানি কমলেও তীব্র হচ্ছে ভাঙন গণতন্ত্র ও খালেদা জিয়ার মুক্তির লক্ষ্যে সবাই ঐক্যবদ্ধ: আমীর খসরু খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য ‘দাওয়াই’ লাগবে: মির্জা আব্বাস কোটা পুনর্বহাল বৈষম্য প্রকট করবে: এবি পার্টি কাঁচা মরিচের ঝাল ও পেঁয়াজের ঝাঁজ দুটোই বেশি বাজারে আর্থিক তথ্য প্রকাশ আরও সীমিত করল কেন্দ্রীয় ব্যাংক সপ্তাহের শেষ দিনে বিক্রির চাপে সূচক ও লেনদেন কমেছে তীব্র লোডশেডিংয়ে ভুগছেন মফস্‌সলের ছোট উদ্যোক্তারা সুন্দরবনের যে ফলটি হরিণ-বানরের প্রিয়, কাজে লাগে মানুষেরও তিন ঘণ্টার ৬০ মিলিমিটার বৃষ্টিতে ডুবল ঢাকার অনেক রাস্তা তমাকে বিয়ে প্রসঙ্গে যা বললেন রাফী ‘সিনেমাটি না দেখলে মিস করবেন’, বললেন জয়া প্রশ্নপত্র ফাঁস–কাণ্ডে গ্রেপ্তার আবেদ আলীর দেখা চান বাপ্পি চৌধুরী ‘অ্যানিমেল’-এর সাফল্যে কত পারিশ্রমিক বাড়ালেন তৃপ্তি

কামিন্সের কাছে ওয়ানডে বিশ্বকাপের শিরোপাই সেরা

খেলাধুলা ডেস্ক আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে হাজির হওয়া লক্ষাধিক দর্শককে হতাশ করে রেকর্ড ষষ্ঠবারের মতো বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে অস্ট্রেলিয়া। টানা ১০ ম্যাচ জিতে ফাইনাল খেললে সেখানে অসিদের বিপক্ষে দাপট দেখাতে পারেনি বিরাট কোহলিরা। ৪২ বল হাতে রেখেই ৬ উইকেটের দাপুটে জয় তুলে নিয়েছে প্যাট কামিন্সের দল।

এই বছরটা প্যাট কামিন্সের জন্য সেরা বছর বলাই যায়। প্রথমে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ জয়। তারপর মর্যাদার অ্যাশেজ ট্রফি জিতেছে অসিরা তার নেতৃত্বে। আর সবশেষ ভারতের মাটিতে উড়তে থাকা ভারতকে হারিয়ে বিশ্বকাপ জয় অস্ট্রেলিয়ার সেটাও তার নেতৃত্বে।এই তিনটি সাফল্যের কোনটাকে এগিয়ে রাখছেন অজি অধিনায়ক? প্যাট কামিন্স অবশ্য সবকিছুর চেয়ে এবারের বিশ্বকাপকেই এগিয়ে রাখতে চান। ভারতের মাটিতে স্বাগতিকদের বিপক্ষে ভরা গ্যালারীর সামনে সবকিছু মিলিয়ে এটিই কামিন্সের কাছে সবার আগে।

ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে কামিন্স বলেন, ‘এটা অনেক বিশাল। এটা ওয়ানডে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ চূড়া, ওয়ানডে বিশ্বকাপের শিরোপা। বিশেষ করে ভারতে এত বিশাল সমর্থকের সামনে এটা জেতা দারুণ ছিল। এই বছরটি আমাদের সবার জন্য দারুণ ছিল। ভারতে (বিশ্বকাপ জেতা), টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল জেতা, অ্যাশেজ সবকিছুই অসাধারণ ছিল। এভাবে সবকিছুতে শীর্ষে থেকে শেষ করতে পারাটা দারুণ ব্যাপার। এসব মুহূর্তগুলোই আমরা জীবনের বাকি সময়টায় মনে রাখব।’

কেন এই শিরোপা জেতা সেরা সে ব্যাখ্যাও দিয়েছেন কামিন্স, ‘এখানে সব (শীর্ষ) আন্তর্জাতিক দল খেলে। প্রতি চার বছর পরপর এখানে খেলার সুযোগ মেলে। কারও ক্যারিয়ার ১০ বছরের হলে সর্বোচ্চ দুটি সুযোগ হয়তো পায় সে। এই বিশ্বকাপে গোটা ক্রিকেট বিশ্বই থমকে থাকে। এর চেয়ে ভালো কিছু তাই আর হয় না।ভারতে বিশ্বকাপযাত্রাটা মোটেও সহজ ছিল না অস্ট্রেলিয়ার জন্য। প্রথম দুই ম্যাচে হেরে বিশ্বকাপ শুরু করে তারা। এরপর টানা ৯ ম্যাচে জিতে বিশ্বকাপের শিরোপা জয়। এমনভাবে ঘুরে দাঁড়ানো হয়ত অস্ট্রেলিয়ার পক্ষেই সম্ভব।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.