• সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ০৯:৪২ অপরাহ্ন |
  • Bangla Version
নিউজ হেডলাইন :
করোনা শনাক্তের হার ১৫ শতাংশের বেশি, মৃত্যু ১ Aviator Betting Video Game: Exactly How To Play, Win And Register ছেলেকে নিয়ে খবর, মেসি বললেন—এটা মিথ্যা এমবাপ্পেকে পিএসজির কট্টর সমর্থকদের ‘হুমকি’ আইপিএল মানে বলিউড নয়, কেকেআর খেলোয়াড়দের গম্ভীর অষ্ট্রেলিয়ায় পিএইচডি করছেন রুপা, বাবা পার্থ বড়ুয়ার সঙ্গে মঞ্চে গাইলেন এ এমন পরিচয়… ক্ষোভ–অভিমান থেকে বিদায় নিলেন ইলিয়াস কাঞ্চন, বললেন অনেক কথা নতুন বিজ্ঞাপনচিত্রে মুশফিক ফারহান এবারের ‘ইন্ডিয়ান আইডল’ জিতলেন কে প্রিন্সেস টিনা খানের মেয়ের ‘ভুলে ভরা’ জীবন ‘অবিকল ঐশ্বরিয়া’ শিল্পী সমিতির বনভোজনে হাতাহাতির ঘটনায় মামলা বৈশাখীর ‘সকালের গানে’ গাইবেন সুস্মিতা সাহা বিচ্ছেদ নিয়ে প্রশ্ন, জবাবে যা বললেন জয়া আহসান চলন্ত ট্রেন থেকে ঝাঁপ দিয়েছিলেন অঙ্কিতা! নেপথ্যে কোন ঘটনা? আগামী উপজেলা নির্বাচনে অংশ নেবে না বিএনপি : রিজভী

বিডিএফএ’র ঘোষণা মানছেন না ব্যবসায়ীরা, বাড়তি দামেই বিক্রি হচ্ছে গরুর মাংস

বিশেষ প্রতিনিধি বাংলাদেশ ডেইরি ফার্মার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিডিএফএ) ঘোষণাকে গ্রাহ্য না করে বাড়তি দামেই বিক্রি হচ্ছে গরুর মাংস।বিডিএফএ’র ঘোষণা অনুযায়ী, গতকাল সোমবার থেকে ৫০ টাকা কমে ৭৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করার কথা।

তবে এই ঘোষণার কোনও প্রভাব বাজারে দেখা যায়নি। ব্যবসায়ীরা বাড়তি দামেই বিক্রি করছেন গরুর মাংস।মাংস ব্যবসায়ীদের দাবি, সংগঠনের পক্ষে ঘোষণা দিলেও সেটা রক্ষা করতে পারবেন না তারা।কারণ বেশি দামে গরু কিনে এনে কম দামে মাংস বিক্রি করলে তারা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। ব্যবসায়ীরা বলছেন, আগের দামেই গরুর মাংস বিক্রি করছেন তারা। অর্থাৎ ৭৫০ থেকে ৭৮০ টাকা কেজি।বিডিএফএ’র সভাপতি মো. ইমরান হোসেন রবিবার ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের এক কর্মশালায় ওই ঘোষণা দিয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন, ভালো মানের গরুর মাংস ৭৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করবেন।তাদের সংগঠনের সদস্য যারা শুধু তাদের প্রতি ওই নির্দেশনা দেন তিনি।ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) তথ্যানুযায়ী, বর্তমানে রাজধানীর বাজারে গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ৭৫০ থেকে ৭৮০ টাকায়। এক মাস আগেও একই দামে বিক্রি হয়েছে। গত বছরের এই সময়ে প্রতি কেজি মাংসের দাম ছিল ৬৫০ থেকে ৭৮০ টাকা।

বিডিএফএ সভাপতি মো. ইমরান হোসেন বলেন, “আমরা যারা খামারিরা মাংস বিক্রি করি তাদের অনুরোধ করা হয়েছে মাংসের দাম কমানোর জন্য। দেশে সব জিনিসের দাম শুধু বাড়েই, কিন্তু কমে না। এজন্য আমরা কমানোর ঘোষণা দিয়েছি, যে কমা শুরু হোক। অন্যদিকে খামারিদের বলেছি, যেন গরুর দাম কিছুটা কম রাখা হয়, যাতে বাজারের বিক্রেতারা মাংস কম দামে বিক্রি করতে পারেন।”


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.