• শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৪:৫১ পূর্বাহ্ন |
  • Bangla Version
নিউজ হেডলাইন :
করোনা শনাক্তের হার ১৫ শতাংশের বেশি, মৃত্যু ১ নিম্নচাপ এগোচ্ছে বাংলাদেশের দিকে, শনিবার রূপ নিতে পারে ঘূর্ণিঝড়ে কোপার আগে কোস্টারিকা থেকে অবসর কেইলর নাভাসের শেষ পর্যন্ত জাভিকে বরখাস্তই করল বার্সা যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হার নিয়ে সাকিব, ‘টি-টোয়েন্টিতে ছোট-বড় দল বলে কিছু নেই’ ফিফার জরিমানা নিয়ে বিবৃতিতে যা বললেন সালাম মুর্শেদী পিওলিকে বরখাস্ত করল এসি মিলান কয়েক ঘণ্টা পর মেরিল–প্রথম আলোর জমকালো আসর সবচেয়ে বাজে পরামর্শ নিয়ে মুখ খুললেন জ্যাকুলিন নতুন লুকে আনুশকা! কানে নিজের ছবির প্রিমিয়ারে থাকবেন ইরানের দণ্ডপ্রাপ্ত সেই নির্মাতা যে কারণে বিয়ে করতে চান না, জানালেন প্রভাস বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যের মতবিনিময় মহাসড়ক যেন ময়লার ভাগাড় কুড়িগ্রামে মাদকসহ যুবক গ্রেফতার বিরামপুরে শ্রেণিকক্ষে যৌন হয়রানি, ইউএনও কার্যালয়ে অভিযোগ শিক্ষার্থীদের

জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম থেকে অব্যাহতি: যা বললেন ব্যারিস্টার খোকন

বিশেষ প্রতিনিধি সেই ১৮ বছর বয়স থেকে বিএনপি করছেন উল্লেখ করে সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির নব নির্বাচিত সভাপতি ব্যারিস্টার এএম মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, বিএনপি করছি এবং ভবিষ্যতেও বিএনপি করব। দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতির পদে দায়িত্ব নেওয়ায় ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকনকে বিএনপি সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম থেকে শনিবার অব্যাহতি দেওয়ার প্রেক্ষাপটে তিনি এ কথা বলেন।

সোমবার সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির এক নম্বর হলে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মাহবুব উদ্দিন খোকন। এর আগে তাঁকে অব্যাহতির চিঠি দেওয়া হয়। ব্যারিস্টার খোকন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে মাহবুব উদ্দিন খোকন তাঁর বক্তব্যে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের মহাসচিব ব্যারিস্টার কায়সার কামালকে আত্মস্বীকৃত অপরাধী উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, ‘ফোরামের তো গঠনতন্ত্রই নেই। তিনি কীভাবে আমাকে বহিষ্কার করেন? তাঁর তো ক্ষমতাই নেই? যতক্ষণ পর্যন্ত গঠনতন্ত্র না হবে ততক্ষণ পর্যন্ত কাউকে বহিষ্কার করা যাবে না। এটা আইনত কার্যকর নয়। আমি বিএনপি করছি, ভবিষ্যতেও বিএনপি করব। কুলাঙ্গাররা শহীদ জিয়ার বিএনপিতে থাকুক, এটা আমি চাই না।’

কায়সার কামালের সমালোচনা করে ব্যারিস্টার খোকন বলেন, ‘তিনি একজন আত্মস্বীকৃত অপরাধী। তিনি কীভাবে আইনজীবীদের নেতা হন? নৈতিক স্খলনের কারণে আইনজীবী ফোরাম থেকে এই অর্বাচীন বালকের সদস্যপদ থাকা উচিত নয়। সরকারের এই এজেন্টকে দল থেকে বহিষ্কার করা উচিত। আমি মনে করি কায়সার কামালের ভূমিকা বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যদের তদন্ত করা উচিত।’

বিএনপির এ যুগ্ম মহাসচিব বলেন, তারেক রহমান নির্বাচনে আমাদের প্যানেল ঘোষণা করেছেন। বিএনপির পার্টি অফিসে সবার উপস্থিতিতে এ ঘোষণা দেওয়া হয়। তারেক রহমান তো বলেননি তোমরা ভোট গণনায় যেও না, সভাপতির দায়িত্ব নিও না। তাহলে দায়িত্ব না নিতে কায়সার কামাল বলার কে?

ব্যারিস্টার খোকন বলেন, ‘যদি আমরা ১২ পদে জয়ী হতাম তাহলে গণতন্ত্র ও ভোটাধিকারের আন্দোলন শক্তিশালী করতে পারতাম। কার সঙ্গে আঁতাত করে কায়সার কামাল সরকারকে পূর্ণ প্যানেলে জয় করার পেছনে কাজ করছিলেন? তাঁর উদ্দেশ্য ছিল সরকারকে ওয়াকওভার দেওয়া।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.